Lionel Messi | Arg vs Isr | মুসলীমদের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মেসি!

Lionel Messi | Arg vs Isr | মুসলীমদের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মেসি!

মেসি সরল, মেসি ভালোবাসার প্রতীক, মেসি নিরহংকারী এই কথাগুলোর যেনো আরো একবার জ্বলজ্যান্ত প্রমাণ করে দিলেন খোদ মেসিই। মুসলীমদের প্রতি মানবতার এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা।

ইসরাইলের বর্বরতায় যেনো ধুলোয় মিশে যাচ্ছে ফিলিস্তিনিরা। ফিলিস্তিনের শিশুদের আর্তনাদ যেনো শেষ হবার নয়। কবে ঘুরে দাঁড়াবে ফিলিস্তিনিরা? কবে আবার ফিলিস্তিনের মসজিদগুলো আযানের প্রতিধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠবে? কবে আবার প্রাণ খুলে হাসবে ফিলিস্তিনের কোমলমতি শিশুরা? এসব প্রশ্নের উত্তর নেই বিশ্ব মোড়লদের কাছে। মানবতার দূত হিসেবে কাজ করা মানবরা যেখানে এসব বর্বরতা দেখেও নিশ্চুপ সেখানে সোচ্চার হয়ে উঠেছে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা।

ইতালির বিপক্ষে ফিনালিসসিমার ম্যাচের পরই ইসরাইলের সঙ্গে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল আর্জেন্টিনার। তবে সেই ম্যাচ খেলতে সরাসরি অনিচ্ছা প্রকাশ করেছেন লিওনেও মেসি।

মূলত ফিলিস্তিন ফুটবল ফেডারেশন ও সাধারণ জনগণের অনুরোধেই সেই ম্যাচ না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আর্জেন্টিনা।

ফিলিস্তিন ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি জিব্রিল রাজোউব বলেছিলেন, মেসি হচ্ছে ভালোবাসা আর শ্রদ্ধার প্রতীক। ইসরাইলের বিপক্ষে খেলতে নেমে তিনি যেনো মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধকে স্বীকৃতি না দেন।

কিছুদিন আগে ইসরাইলের বর্বরতায় পঙ্গু হওয়া ফিলিস্তিনের ফুটবলার মেসিকে অনুরোধ করেছিলেন ম্যাচটি না খেলার জন্য।

২০১৮ সালেও একবার ইসরাইলের সঙ্গে ম্যাচ বাতিল করে দিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এবারও মেসির কারণে ইসরাইলের বিপক্ষের ম্যাচটি বাতিল ঘোষণা করতে বাধ্য হয় আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেডারেশন ও দেশটির সরকার।

এ প্রসঙ্গে লিওনেল মেসি বলেন, ইউনিসেফের একজন শুভেচ্ছাদূত হিসেবে তাদের বিপক্ষে খেলতে পারি না যারা নিরীহ শিশুদের বিনা অপরাধে হত্যা করে। আমাদের খেলাটি অবশ্যই বাতিল করতে হতো। কারণ ফুটবলার হওয়ার আগেও আমরা মানুষ।

এমন মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করার জন্য ফিলিস্তিনের রাস্তায় দাঁড়িয়ে মেসিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে ফিলিস্তিনের শিশুরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Enable Notifications    OK No thanks