ভারত বনাম পাকিস্তানঃ সেই মেলবোর্ন মাঠে আবারো নো বল বিতর্কে ভারত! বাংলাদেশের পর এবার ভুক্তভোগী পাকিস্তান!

ভারত বনাম পাকিস্তান | ভারত নো বল বিতর্ক | ভারত বনাম পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নো বল বিতর্ক | নো বল | টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ | বিশ্বকাপ | রোহিত শর্মা | বিরাট কোহলি

২০১৫ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারতের নো বল বিতর্ক সবারই জানা। সে বিশ্বকাপের হট টপিক হিসেবে আলোচনার তুঙ্গে ছিল সেই নো বল বিতর্ক। এই মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডেই ২০১৫ বিশ্বকাপে ঘটেছিল এই ঘটনাটি। ৯০ রান করা রোহিত শর্মা রুবেল হোসেনের ফুলটস বল মিডউইকেটের দিকে তুলে মারেন। সেখানে ক্যাচ আউটের শিকার হন রোহিত। কিন্তু তৎক্ষণাৎ নো বলের ঘোষণা দেন অনফিল্ড আম্পায়ার আলিম দার তার সঙ্গে একমত পোষণ করেন ইয়ান গড। ৯০ রানে করা রোহিত শর্মা শেষ পর্যন্ত ১৩০ রানের ইনিংস খেলে ভারতকে এনে দেন পাহাড়সম সংগ্রহ।

এবারও পাকিস্তানের সঙ্গে ঘটলো একি ঘটনা৷ একি মাঠ, একি নো বল কান্ড তবে বিশ্বকাপ ভিন্ন।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে নাটকীয়ভাবে ৪ উইকেটে হারিয়েছে ভারত। তবে ভারতের এই জয়কে ছাপিয়ে গেছে শেষ ওভারের নো বল কান্ড!

ম্যাচে শেষ ওভারে ভারতের যখন প্রয়োজন ১৬ রান সে সময় বোলিং করতে আসেন মোহাম্মদ নাওয়াজ। ওভারে এসেই হার্দিক পান্ডিয়াকে সাজঘরে ফিরিয়ে ভারতকে চাপে ফেলেন মোহাম্মদ নাওয়াজ। দ্বিতীয় বলে দীনেশ কার্তিক একরান নিয়ে স্ট্রাইক দেন কোহলিকে। তৃতীয় বলে কোহলি নেন দুই রান। ভারতের প্রয়োজন ৩ বলে ১৩ রানের।

ঠিক সে সময় চতুর্থ বলে ফুলটস দেন নাওয়াজ। সেই ফুলটসের সুবিধা লুফে নিয়ে ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে উড়িয়ে মেরে ছক্কা আদায় করে নেন কোহলি। এরপরেই আম্পায়ারের কাছে নো বলের আবেদন জানান বিরাট কোহলি। আম্পায়ারও কোহলির আবেদনে সাড়া দিয়ে নো বল ঘোষণা করে বলটিকে। যার ফলে ৭ রান পেয়ে যায় ভারত।

এরপরের বলটি ওয়াইড ডেলিভারি দেন নাওয়াজ। যার ফলে ফ্রি হিট অব্যাহত থাকে। ভারতের দরকার ৩ বলে ৫ রান। এর পরের বলে বোল্ড হন কোহলি। কিন্তু বলটি স্ট্যাম্পে লেগে থার্ড ম্যানের কাছে চলে যায়। সেখান থেকে শাহিন আফ্রিদি দৌড়ে বলটি কিপারের কাছে পাঠানো পর্যন্ত দৌড়ে ৩ রান নিয়ে নেন কোহলি। এরপরের বলে দীনেশ কার্তিককে স্ট্যাম্পিং করে সাজঘরে পাঠান মোহাম্মদ রিজওয়ান। তবে তাতে লাভ হয়নি।

ওভারের পঞ্চম ডেলিভারিটিও ওয়াইড দিয়ে বসেন নাওয়াজ যার ফলে শেষ বলে ভারতের প্রয়োজন ছিল ১ রানের। শেষ বলে মিডঅফের উপর দিয়ে মেরে ১ রান নিয়ে ভারতকে মধুর জয় এনে দেন রবিচন্দ্র আশ্বিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Enable Notifications OK No thanks