দুস্থ এবং অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে সাকিবের এক অভিনব উদ্যোগ!!

করোনাভাইরাসের কারণে হুমকির মুখে পড়েছে সারা বিশ্ব। বিশ্বে অচল অবস্থা তৈরি হয়ে গিয়েছে এই ভাইরাসের কারণে। বিশ্বে এ পর্যন্ত এ.

করোনাভাইরাসের কারণে হুমকির মুখে পড়েছে সারা বিশ্ব। বিশ্বে অচল অবস্থা তৈরি হয়ে গিয়েছে এই ভাইরাসের কারণে। বিশ্বে এ পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ।

বাংলাদেশেও ইতিমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস। এ পর্যন্ত ৪৮ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে বাংলাদেশে এবং মারা গেছেন ৫ জন। এছাড়াও সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৫ জন।

দেশের এমন অবস্থায় সকল কিছু বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। যার ফলে নিন্মআয়ের মানুষদের বেঁচে থাকা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। হুমকির মুখে পড়েছে তাদের জীবন। এবার সেই দিনে এনে দিনে খাওয়া অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে এক অভিনব উদ্যোগ হাতে নিলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

‘দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন’ এর মাধ্যমে সারা বিশ্ব থেকে অনুদান সংগ্রহ করে বাংলাদেশের দুস্থদের সহায়তা করার উদ্যোগ নিয়েছেন সাকিব।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক পোস্টে সাকিব লিখেন, সারা দেশ আজ লড়ছে একটি মহামারীকে রুখতে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অসংখ্য সুবিধাবঞ্চিত মানুষ দিন গুনছে কবে তাদের রোজগার আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে।

সমাজের খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে সাকিব আল হাসানের ফাউন্ডেশনটি। সারা বিশ্বের ব্যক্তি ও সংস্থা থেকে অনুদান সংগ্রহের পর তহবিলটি প্রদান করা হবে ‘মিশন সেইভ বাংলাদেশ’ নামের এক উদ্যোগে। এই উদ্যোগ নিয়েছে দ্য ডেইলি স্টার, Sheba.xyz ও সমকাল৷

সাকিব আরো জানান, সুবিধাবঞ্চিত মানুষগুলোর প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে “দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন” পদক্ষেপ নিয়েছে দেশ ও এবং সারাবিশ্বের বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংস্থা থেকে ফান্ড উত্তোলনের। এই ফান্ড ব্যবহার করা হবে করোনাভাইরাসের কারণে প্রভাবিত সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের সাহায্য করার জন্য। এবং এর ধারা অনুযায়ী ” দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন” এর সর্বপ্রথম সহায়তা যাচ্ছে মিশন “সেইভ বাংলাদেশ” নামক একটি উদ্যোগে।

“মিশন সেইভ বাংলাদেশ” এর পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে ২০০০ সুবিধাবঞ্চিত পরিবারকে সহায়তা করা হয়েছে বলেও জানান সাকিব। যারা করোনাভাইরাসের কারণে প্রভাবিত হয়েছে৷

সুবিধাবঞ্চিতদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে সাকিব বলেন, আসুন সবাই মিলে একসাথে লড়ি, একসাথে বাঁচি। কারণ, মানুষ তো মানুষেরই জন্য।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: