সেনাবাহিনীর দ্বারা ত্রান কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সরকারকে লিগ্যাল নোটিশ!!

করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে নিম্নআয়ের খেটে খাওয়া মানুষদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। সরকার ত্রান সহায়তা দিলেও সেই ত্রান সহায়তা নিয়েও চলছে.

করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে নিম্নআয়ের খেটে খাওয়া মানুষদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। সরকার ত্রান সহায়তা দিলেও সেই ত্রান সহায়তা নিয়েও চলছে নানা অনিয়ম। ফলে সকলের নিকট পৌঁছাতে পারছে না এই ত্রান সহায়তা।

এসব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষদের তালিকা প্রস্তুত করে সেনাবাহিনীর মাধ্যমে ত্রান কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য সরকারকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

শনিবার পরিকল্পনা সচিব, স্থানীয় সরকার সচিব, পল্লি উন্নয়ন সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিব, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক বরাবর এই নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন।

পাঠানো সেই নোটিশে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণের প্রেক্ষিতে অর্থনেতিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠী এই মুহুর্তে আতঙ্ক এবং অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে। স্বল্প আয়ের মানুষ, দিনমজুর, রিকশাচালক থেকে শুরু করে নানা পেশার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। অনেক মধ্যবিত্ত পরিবার লজ্জায় সাহায্য চাইতে পারছে না। এ সমস্ত পরিবারের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য ও ঔষুধের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা, টিভি, মিডিয়া এবং সোস্যাল মিডিয়াতে এ সংক্রান্ত নানা খবর প্রকাশ পেয়েছে। এ অবস্থায় সরকারের দায়িত্ব অর্থনেতিকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর তালিকা প্রস্তুত করে তাদের নিকট খাদ্য ও ঔষুধ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া।

আরো বলা হয়, ইতোপূর্বে নানা দূর্যোগে সেনাবাহিনী সাফল্যের সঙ্গে সরকারকে সহায়তা করেছে এবং জনসাধারণের আস্থা অর্জন করেছে। ত্রান কাজে বিভিন্ন অনিয়ম, নির্বাচিত প্রতিনিধি কর্তৃক চাল চুরি, মজুদ এবং সমন্বয়হীনতা লক্ষ্য করা গিয়েছে। এ পর্যায়ে একমাত্র সেনাবাহিনীর মাধ্যমে এই ত্রান বিতরণ এবং সরবরাহের কাজ যথাযথভাবে পরিচালনা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: