BPL 2022 | Barishal Vs Comilla | Shakib Al Hasan | সাকিবের অধিনায়কত্বের মারপ্যাচে কুমিল্লার বিদায়! ফাইনালে বরিশাল!

Fortune Barisal secured the final as the first team in Bangabandhu Bangladesh Premier League. Shakib Al Hasan’s Fortune Barisal defeated Comilla Victorians by 10 runs in a breathtaking match.

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করল ফরচুন বরিশাল। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ১০ রানে হারিয়ে নাটকীয় জয় পেয়েছে সাকিব আল হাসানের ফরচুন বরিশাল। টানা সপ্তম জয়ের মাধ্যমেই ২০২২ বিপিএলের ফাইনালে উঠল ফরচুন বরিশাল।

প্রথম কোয়ালিফায়ারে প্রথমে টসে জিতে এদিন বরিশালকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ব্যাটিংয়ে শুরুটা দূর্দান্ত করে বরিশালের দুই ওপেনার মুনিম শাহরিয়ার ও ক্রিস গেইল। দুজন মিলে গড়েছেন ৫৮ রানের উদ্ভোধনী জুটি। ব্যক্তিগত ১৯ বলে ৪ চারে ২২ রান করে ক্রিস গেইল সাজঘরে ফিরে গেলেও ব্যাট হাতে তান্ডব চালাতে থাকেন মুনিম। তার চার-ছক্কার ঝড়ে দলের রান ক্রমাগতভাবে বাড়তে থাকে। তবে দলীয় ৮৪ রানের সময় হাফসেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে থাকা মুনিম শাহরিয়ারকে এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলেন তানভির ইসলাম। ৩০ বলে ২ চার ৪ ছক্কায় ৪৪ রানের ঝড় তুলে আউট হন মুনিম শাহরিয়ার।

এরপর নাজমুল হোসেন শান্তর ভুলে রান আউটের শিকার হন ২ বলে ১ রান করা সাকিব আল হাসান। সাকিবের উইকেটের পর দলীয় ৯৪ রানে একে একে সাজঘরে ফিরেন শান্ত ও হৃদয়। এরপর ব্রাভো ও জিয়াউর রহমানের ১৭ এবং নুরুল হাসান সোহানের ১১ রানে ভর করে দলীয় ১৪৩ রানে ৮ উইকেট হারিয়ে থামে ফরচুন বরিশালের ইনিংস।

কুমিল্লার হয়ে বল হাতে তিন উইকেট শিকার করেছেন শহিদুল ইসলাম। এছাড়াও দুটি উইকেট শিকার করেছেন ইংলিশ অলরাউন্ডার মঈন আলী। অন্যদিকে নারিন ও তানভির তুলে নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

বরিশালের দেওয়া মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই ব্যাট হাতে চোখ রাঙাতে থাকে কুমিল্লার দুই ওপেনার লিটন দাস ও মাহমুদুল হাসান জয়। দুজন মিলে গড়েছেন ৬২ রানের উদ্ভোধনী জুটি। ৩০ বলে ১ ছক্কায় ২০ রানের ধীর গতির ইনিংস খেলা জয়কে সাজঘরে ফিরিয়ে বরিশালকে ব্রেক থ্রু এনে দেন মেহেদী হাসান রানা।

এরপর দলীয় ৬৮ রানে একে একে সাজঘরে ফিরেন ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস। ৩৫ বলে ৪ চারে ৩৮ রান করেন লিটন অন্যদিকে ৫ বলে ১ চারে ৫ রান করেন কায়েস। মঈন আলী ও ফাফ ডু প্লেসির ব্যাটে জয়ের স্বপ্ন বুনতে থাকা কুমিল্লার স্বপ্ন হতাশাতে রূপান্তর করে দিলেন ডোয়াইন ব্রাভো ও মেহেদী হাসান রানা। দলীয় ১০৪ রানে ১৫ বলে ৩ ছয়ে ২২ রান করা মঈন আলী আউট হন। অন্যদিকে দলীয় ১২৪ রানে ১৫ বলে ১ চারে ১ ছক্কায় ২১ রান করা ফাফ ডু প্লেসি আউট হয়েছেন।

এরপর সাকিব আল হাসানের দূর্দান্ত অধিনায়কত্বে শেষ ওভারে মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ও সুনিল নারিনের উইকেট তুলে নেন মুজিব-উর-রহমান। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৩৩ রান করতে সক্ষম হয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। যার ফলে নাটকীয় জয় নিয়ে ফাইনালের টিকিট কাটে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

বরিশালের হয়ে বল হাতে দুটি করে উইকেট শিকার করেছেন মুজিব-উর-রহমান, মেহেদী হাসান রানা ও শফিকুল ইসলাম। এছাড়াও ডোয়াইন ব্রাভো পেয়েছেন একটি উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Enable Notifications    OK No thanks