চীনের গোপন তথ্য ফাঁস!! লুকিয়ে করোনা আক্রান্তদের গণহারে লাশ পুড়িয়ে ফেলছে চীন!

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে বর্তমানের সারাবিশ্বে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছেন করোনাভাইরাস। করোনাভাইরাসের কারণে বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। এই ভাইরাসে এ পর্যন্ত.

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে বর্তমানের সারাবিশ্বে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছেন করোনাভাইরাস। করোনাভাইরাসের কারণে বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। এই ভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে বিশ্বের প্রায় অধিকাংশ দেশ। বিশ্বের প্রায় ২ শতাধিক দেশ এবং অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাসটি। এ পর্যন্ত সারা বিশ্বে মোট ৯ লাখ ৩৬ হাজার ১৭০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এবং এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৪৭ হাজার ২৪৯ জনের। অন্যদিকে চীনে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮১ হাজার ৫৫৪ জন। এছাড়া আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে মোট ৩ হাজার ৩১২ জন।

এদিকে চীনে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আরো বেশী বলে মনে করছেন সেখানকার স্থানীয়রা। তাদের মতে, কেবল চীনের উহানেই কমপক্ষে ৪২ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছে। যা চীন সরকার তা প্রকাশ করেনি। চীনের প্রশাসন সঠিক মৃতের সংখ্যা প্রকাশ না করে সেটিকে ধামাচাপা দিয়েছে বলে মনে করছেন সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা।

এদিকে চীনের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে মহামারী গোপন করার অভিযোগে মামলা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, চীন সঠিক সময়ে এই ভাইরাসের কথা জানালে সারা বিশ্বে হয়তো এতো মানুষ মারা যেত না।

এছাড়াও চীনের বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ রয়েছে। যার মধ্যে হলো, তারা এখনো মহামারী এই ভাইরাসের সঠিক তথ্য গোপন করছে। চীনের ন্যাশনাল হেলথ কেয়ার ভাইরাসের কারণে মৃত্যুর যে সংখ্যা দেখিয়েছে, তার থেকেও অনেক বেশী মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

অন্যদিকে চীনে লকডাউন ওঠার পরেও বেশ কিছু জায়গায় মৃতদেহ পোড়ানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠে এসেছে। রেডিও ফ্রি এসিয়া (আরএফএ) এর সাম্প্রতিক এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, চীনে প্রতিদিন প্রায় ৫ হাজার মৃতদেহ সৎকার করানো হয়েছে। প্রসাশন লুকিয়ে গণহারে মৃতদেহ পুড়িয়েছে বলে অভিযোগ উঠে এসেছে। যদিও এখন পর্যন্ত প্রমাণভিত্তিক তথ্য হাজির করতে পারেনি আরএফএ। তবে তারা স্থানীয় মানুষদের সাথে কথা বলে এই রিপোর্ট প্রকাশ করে।

এদিকে ডেইলি মেইল এর দাবি, শুধুমাত্র চীনের উহান শহরেই ৪২ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে৷ যদিও চীন এ তথ্য স্বীকার করতে নারাজ। তাদের দাবি, ৩ হাজার ৩০০ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছে। তবে স্থানীয়রা দাবি করছে, গত ১২ দিনে অন্তত ৪২ হাজার মৃতদেহ সৎকার করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: