BPL 2022 | Faf Du Plesis | Delport | ডু প্লেসিসের বিধ্বংসী ব্যাটিং! নাহিদুলের বোলিং জাদুতে টানা তৃতীয় জয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের!

Comilla Victorians defeated Chittagong Challengers by 52 runs in the 13th match of BPL today. Chittagong Challengers were bowled out for 131 by Nahidul-Mustafiz after chasing the target of 164 runs set by Comilla.

বিপিএলের ১৩তম ম্যাচে আজ চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৫২ রানে হারিয়ে হ্যাট্রিক জয় পূর্ণ করল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। এদিন কুমিল্লার দেওয়া ১৮৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নাহিদুল-মুস্তাফিজদের বোলিং তান্ডবে ১৩১ রানেই অলআউট হয়ে যায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

টস হেরে প্রথম ব্যাট করতে নামা কুমিল্লা মাহমুদুল হাসান জয়ের উইকেট হারায়। দলীয় ৪ রানে জয়কে সাঝঘরে ফিরান নাসুম আহমেদ। তবে শুরুর ধাক্কা ভালোভাবেই সামাল দেন ফাফ ডু প্লেসিস ও বিপিএলের এবারের আসরে নিজের প্রথম ম্যাচে খেলতে নামা লিটন দাস।

ফাফ ডু প্লেসিস এবং লিটন দাস মিলে গড়েন ৫৫ বলে ৮০ রানের বিশাল জুটি। হাফসেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে থাকা লিটনকে সাজঘরে ফিরিয়ে তাদের এ জুটি ভাঙেন নাসুম আহমেদ। ৩৪ বলে ৫ চার ১ ছয়ে ৪৭ রান করে ফিরেন লিটন দাস। এরপরই মাত্র ১ রান করে আউট হয়ে যান ইমরুল কায়েস। বেনি হাওয়েলের বলে বোল্ড হন কায়েস।

তবে থেমে থাকেননি ডু প্লেসিস। ক্যামেরন ডেলপোর্টকে সাথে নিয়ে ব্যাটিং ঝড় চালাতে থাকেন। তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর আরো বিধ্বংসী হয়ে উঠেন ফাফ ডু প্লেসিস তাকে সঙ্গ দিয়ে ব্যাটিং তান্ডব চালাতে থাকেন ডেলপোর্ট। মাত্র ৪৯ বলে ৯৭ রানের তান্ডবীয় এক জুটি গড়েন ফাফ ডু প্লেসিস ও ক্যামেরন ডেলপোর্ট।

এই দুজনের ব্যাটিং ঝড়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ১৮৩ রান সংগ্রহ করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। ৫৫ বলে ৮ চার ৩ ছক্কায় ৮৩ রানের ঝড় তুলে অপরাজিত ছিলেন ফাফ ডু প্লেসিস অন্যদিকে মাত্র ২৩ বলে ৪ চার ৩ ছক্কায় ৫১ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন ডেলপোর্ট।

জবাবে এই রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকে নড়বড়ে ছিল চট্টগ্রামের ব্যাটিং লাইন আপ। দলীয় ৪ চারে কেনার লুইসের উইকেটের পর একে একে সাজঘরে ফিরে যান আফিফ হোসেন ও সাব্বির রহমানরা। চট্টগ্রামের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ বলে ৭ চার ৩ ছয়ে ৬৯রানের ইনিংস খেলেছেন উইল জ্যাকস। এছাড়া আর কোনো ব্যাটারই পার করতে পারেনি বিশের ঘর। ফলে নাহিদুল ও মুস্তাফিজুর রহমানদের বোলিং তান্ডবে মাত্র ১৩১ রানেই অলআউট হয়ে যায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

কুমিল্লার হয়ে সর্বোচ্চ তিন উইকেট শিকার করেছেন নাহিদুল ইসলাম। এছাড়াও মুস্তাফিজুর রহমান, তানভির ইসলাম ও শহিদুল ইসলাম শিকার করেছেন দুটি করে উইকেট। কারিম জানাত পেয়েছেন একটি উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Enable Notifications    OK No thanks