Cricket News

দুশমান্থায় দুশ্চিন্তা!! শেষ ওয়ানডেতে এসে এক দুশমান্থার কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ বাংলাদেশের!

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ৯৭ রানের হার বরণ করেছে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার দেওয়া ২৮৬ রানের পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে ব্যাটিং ব্যর্থতায় ৪২.৩ ওভারে ১৮৯ রানে অলআউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। ফলে সিরিজের শেষ ম্যাচে স্বান্তনার জয় পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। শ্রীলঙ্কার হয়ে এদিন বল হাতে দূর্দান্ত বোলিং করেছেন দুশমান্থা ছামিরা। ৫ উইকেট শিকার করে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপকে একাই ধ্বংস করে দিয়েছেন ছামিরা।

শ্রীলঙ্কার দেওয়া পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। দুশমান্থা ছামিরার বোলিং তান্ডবে দলীয় ২৮ রানেই একে একে সাজঘরে ফিরেন মোহাম্মদ নাঈম শেখ, সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। ২ বলে ১ রান করে নাঈম শেখ, ৭ বলে ৪ রান করে সাকিব আল হাসান ২৯ বলে ২ চারে ১৭ রান করে আউট হন তামিম ইকবাল।

দ্রুত তিন উইকেট হারানো বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে হাল ধরেন মুশফিকুর রহিম ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তবে মোসাদ্দেকের সাথে জুটিটা লম্বা করতে ব্যর্থ হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। মোসাদ্দেকের সাথে ৫৬ রানের জুটি গড়ে দলীয় ৮৪ রানে রামেশ মেন্ডিসের বলে ক্যাচ তুলে আউট হন মুশফিক। ৫৪ বলে কোনো বাউন্ডারি না হাঁকিয়ে ২৮ রান করেন মুশফিক।

এরপর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে ৪১ রানের জুটি গড়ে নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩তম হাফসেঞ্চুরি নেন মোসাদ্দেক হোসেন। ৭২ বলে ৩ চার ১ ছয়ে ৫১ রান করেই আউট হয়ে যান মোসাদ্দেক। রামেশ মেন্ডিসের বলে ক্যাচ তুলে আউট হন মোসাদ্দেক। দলীয় ১৫৮ রানে সাজঘরে ফিরেন আফিফ হোসেনও। ১৭ বলে ১৬ রান করে ওয়ানিন্দু হাসরাঙ্গার বলে আউট হন আফিফ।

আফিফের পর মেহেদী হাসান মিরাজ ফিরেন শূন্য রানে। ছামিরার বলে ক্যাচ তুলে আউট হন মিরাজ। ছামিরার ওই একি ওভারে শূন্য রানে বোল্ড হয়ে ফিরেন তাসকিন আহমেদ। এরপর শরিফুল ইসলামকে সাথে নিয়ে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। এটি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২৫তম অর্ধশতক এবং এই সিরিজে দ্বিতীয়।

দলীয় ১৮১ রানে শরিফুল ইসলামকে আউট করেন হাসরাঙ্গা। এরপর দলীয় ১৮৯ রানে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের উইকেট তুলে নেন বিনুরা ফার্নান্দো। ফলে ১৮৯ রানে সবকটি উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার কাছে ৯৭ রানের হার বরণ করে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কার হয়ে সর্বোচ্ছ ৫ উইকেট শিকার করেছেন দুশমান্থা ছামিরা। এছাড়াও রামেশ মেন্ডিস ও ওয়ানিন্দু হাসরাঙ্গা তুলে নিয়েছেন ২ টি করে উইকেট। বিনুরু ফার্নান্দো পেয়েছেন ১ টি উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this:
Enable Notifications    OK No thanks