মেসি-নেইমার-রোনালদো ২৬ বছর বয়সে অর্জনের দিক থেকে কে এগিয়ে?

মেসি নেইমার রোনালদো ফুটবল বিশ্বের তিন নক্ষত্রের নাম। বর্তমান ফুটবলের সব আলোচনা তাদেরকে ঘিরে। প্রতিনিয়ত রেকর্ড ভাঙ্গা গড়ার লড়াইয়ে থাকেন.

মেসি নেইমার রোনালদো ফুটবল বিশ্বের তিন নক্ষত্রের নাম। বর্তমান ফুটবলের সব আলোচনা তাদেরকে ঘিরে। প্রতিনিয়ত রেকর্ড ভাঙ্গা গড়ার লড়াইয়ে থাকেন তারা। এই তিন জনের মধ্যে দুইজনে জন্মদিন ৫ ফেব্রুয়ারি। তারা হলেন রোনালদো ও নেইমার। রোনালদো ও নেইমারের জন্মদিন ফেব্রুয়ারির পাঁচ তারিখ। এই ৫ তারিখে নেইমারের হয়েছে ২৬ বছর আর রোনালদোর হলো ৩৩ বছর।

তাদের সাথে এবার আলোচনায় এবার মেসির নাম। ফুটবল ক্যারিয়ারে ২৬ বছর বয়স পর্যন্ত কে কি কি অর্জন করতে পেরেছেন? আর সেই ক্ষেত্রে এগিয়ে ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। বয়স ২৬ এর মধ্যে তিনি ক্লাবের হয়ে জিতেছেন দুটি লা লিগা শিরোপা ও একটি চ্যাম্পিয়নস লিগ টাইটেল। এছারাও আন্তর্জাতিক অর্জনও কম নয় নেইমারের। ২০১৩ সালে নেইমার জিতেছেন ফিফা কনফেডারেশন কাপ।

নেইমার ক্যারিয়ারের এ সময় ৫২০ ম্যাচে গোল করেছেন ৩২১ টি। সাথে এসিস্ট করেছেন ১৭১ টি। যার ফলে ৪৯২ গোলে সরাসরি অবদান নেইমারের। তবে নেইমার জিতেননি কোন ব্যালন ডি’অর ও গোল্ডেন শু।

লিওনেল মেসি! যাকে বলা হয় ভিনগ্রহের ফুটবলার। নিজের সৃষ্টিশীল নৈপুন্যে জায়গা করে নিয়েছেন বিশ্বে কোটি ফুটবলপ্রেমীর মনের মণিকোঠায়। ক্যারিয়ারের ২৬ বছর বয়সে মেসি খেলেছিলন ৪৬১ ম্যাচ যেখানে তিনি গোল করেছেন ৩৪৮ টি। আর এসিস্ট করেন ১৩৮ টি। তার মানে ৪৮৬ গোলে সরাসরি অবদান এই আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকরের। এ ছাড়াও জিতেছেন ৪ টি ব্যালন ডি’অর ও ৩ টি গোল্ডেন শু।

ফুটবলের আরেক নক্ষত্র রিয়েল মাদ্রিদের পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সেই বয়সে তার ক্যারিয়ারটাও ছিল অসাধারণ। অভিষেকের পর ২৬ বছর বয়স পর্যন্ত রোনালদো খেলেছেন ৪৭২ টি ম্যাচ যেখানে গোল করেছেন ২১৩ টি। আর এসিস্ট ৮৯ টি। যার ফলে ৩০২ গোলে সরাসরি অবদান এই পর্তুগিজ তারকার। সাথে আছে ১ টি ব্যালন ডি’অর ও গোল্ডেন শু।

এমন অর্জনের মাধ্যমে মেসি-রোনালদোকে অনেক পেছনে ফেললেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: