বিশ্বকাপে ভারত এবং আইসিসির চুরি ধরিয়ে দিলো ক্যালিস!

দ্বাদশ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর শুরু হয়েছে গত ৩০ শে মে। হিসেব মতে আজ বিশ্বকাপের পঞ্চম দিন। কিন্তু লক্ষ্য করলে দেখা.

দ্বাদশ ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর শুরু হয়েছে গত ৩০ শে মে। হিসেব মতে আজ বিশ্বকাপের পঞ্চম দিন। কিন্তু লক্ষ্য করলে দেখা যাবে সপ্তম দিনের আগে ভারতের কোনো ম্যাচ নেই। অথচ ততোদিনে প্রত্যেক দলের দুইটি অথবা তিনটি ম্যাচ খেলা হয়ে যাবে।

বিশ্বকাপের সূচি অনুযায়ী ৫ই জুন বাংলাদেশের বিপক্ষে মাঠে নামবে নিউজিল্যান্ড। সেই দিন দক্ষিণ আফ্রিকা ভারতের বিপক্ষে তাদের তৃতীয় ম্যাচ খেলবে অথচ সেটিই নাকি ভারতের প্রথম ম্যাচ। এরপর ৬ই জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়া তাদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে।

অথচ সূচি অনুযায়ী ২রা জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলার কথা ছিলো ভারতের। ভারত তাদের খেলোয়াড়দের আটসাঁট সূচির আইপিএলে খেলার ধকল কাটিয়ে তুলতে বিশ্বকাপের আগে কমপক্ষে ১৫ দিন বিশ্রাম চেয়েছিলো। সেটা করতে বিসিসিআই ও আইসিসি মিলে ২রা জুনের ম্যাচ পিছিয়ে ৫ই জুন স্থানান্তর করেছে। অথচ আইপিএলে খেলছিলো বিভিন্ন দলের নামি-দামি খেলোয়াড়রা। তারা বিশ্রাম না পেলেও ভারত ঠিকই বিশ্রামের জন্য এমন কাজ করেছে। আর এই কাজে আইসিসি তাদের সহায়তা করেছে। ভারতকে এই সুবিধা দিতে গিয়ে অন্যদলের প্রতি কঠোর হয়েছে আইসিসি। উদাহরণস্বরুপ দক্ষিণ আফ্রিকার দিকে তাকালে বুঝা যায়। রবিবার বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচটি তারা হেরে যায়। সে ক্ষেত্রে ভারতের বিপক্ষে তারা বেশ চাপে থাকবে ৫ই জুনের ম্যাচে।

এবার এসব বিষয় নিয়ে নিজের রাগ ঝাড়লেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিস। তিনি বলেন এটা আইসিসির দৈত নীতির বহিপ্রকাশ। ভারত যখন মাঠে নামবে তখন বিশ্বকাপের ৮ টি ম্যাচ হয়ে যাবে। এর মধ্য দিয়ে ভারত ভালোভাবেই অন্য দলগুলো, পিচ এবং কন্ডিশন সম্পর্কে ভালো ধারণা পেয়ে যাবে।

এদিকে বিশ্বকাপের সময় ভারতকে এমন সুবিধা দেওয়া অনেকটা দৃষ্টিকটু হয়ে দেখা দিয়েছে। বিশ্বকাপের ছয় দিন পর ভারত কেনো তাদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে। সেই প্রশ্ন এখন অনেকের কাছে এক ধাঁধার নাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: