নেইমারের ৬! ডিজনকে ৮ গোল দিলো পিএসজি।

চোট কাটিয়ে উঠা নেইমারকে নিয়ে শঙ্কায় ছিলো পিএসজি। কিন্তু মাঠে নেমে সব শঙ্কা দূরে ঠেলে দিয়ে জ্বলে উঠলেন নেইমার। পিএসজি.

চোট কাটিয়ে উঠা নেইমারকে নিয়ে শঙ্কায় ছিলো পিএসজি। কিন্তু মাঠে নেমে সব শঙ্কা দূরে ঠেলে দিয়ে জ্বলে উঠলেন নেইমার। পিএসজি পেল ৮-০ গোলের বিশাল জয়।

বুধবার রাতে লিগ ওয়ানের ম্যাচে ডিজনের বিপক্ষে ৮-০ গোলের জয় পেয়েছে পিএসজি।

ম্যাচের চার মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় পিএসজি। পিএসজির হয়ে প্রথম গোলটি করেন এঞ্জেলো ডি’মারিয়া। নান্টেসের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচেও একমাত্র গোলটি করেছেন এই আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার।

এরপর ম্যাচের পঞ্চদশ মিনিটে ব্যবধান দিগুণ করেন পিএসজি। কাভানি নেইমার ডি’মারিয়া মিলে আসে সেই গোল। প্রতিপক্ষের এক খেলোয়ারের কাছ থেকে বল কেরে নেই নেইমারকে বাড়ান কাভানি। সে বল ডি’মারিয়াকে পাস দেন নেইমার। আর নেইমারের পাস থেকে অসাধারণ ভাবে বল জালে জড়ান। ডি’মারিয়া।

২১ তম মিনিটে ব্যবধান আরো বাড়িয়ে নিলো পিএসজি। ডি’মারিয়ার পাস থেকে দারুণ এক হেডে লক্ষ্যবেধ করেন এডিনসন কাভানি।

এরপর ফাউলেন শিকার হয় নেইমার। আর ফাউল থেকে পাওয়া সেই ফ্রি-কিকে ম্যাচে ৪২ তম মিনিটে নিজের প্রথম গোলটি করেন নেইমার।

ম্যাচের ৫৭ তম মিনিটে গোলের মাধ্যমে বড় জয়ের দিকে এগিয়ে যায় পিএসজি। নিজের দ্বিতীয় ও ম্যাচের পঞ্চম গোলটি করেন বিশ্বের সবচেয়ে দামী ফুটবলার নেইমার।

এরপরে আবারো নেইমার ঝলক। ৭৩ তম মিনিটে বাঁ দিক থাকে আক্রমনে উঠে নেইমার, প্রতিপক্ষের একাধিক ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে দারুণ শটে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ন করেন এই ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। পিএসজির হয়ে এটা নেইমারের প্রথন হ্যাটট্রিক।

এর চার মিনিট পর নেইমারের বাড়ানো বল জালে জড়ান কিলিয়ান এমবাপ্পে।

এমবাপ্পের পর আবারো নেইমার। ম্যাচের ৮৩ তম মিনিটে স্পট কিক থেকে নিজের চতুর্থ ও দলে ৮ নম্বর গোলটি করেন নেইমার।

লিগে পিএসজির হয়ে এটি নেইমারের ১৫ তম।গোল। অন্যদিকে ২১ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরো মজবুত করেছে উনাই এমেরির দল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: