ছিঃফাইনালে ভুল আম্পায়ারিংয়ের শিকার নিউজিল্যান্ড!!! আম্পায়ারিং নিয়ে যে গোপন তথ্য ফাঁস করলেন সাইমন টফেল!

২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল ছিলো নাটকীয়তায় ভরা। আর এই ফাইনাল নিয়ে যেনো আলোচনা-সমালোচনা থামছেই না। বিশ্বকাপের ফাইনাল শেষে সুপার ওভারের নিয়ম.

২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল ছিলো নাটকীয়তায় ভরা। আর এই ফাইনাল নিয়ে যেনো আলোচনা-সমালোচনা থামছেই না। বিশ্বকাপের ফাইনাল শেষে সুপার ওভারের নিয়ম নিয়ে টুইটারে আপত্তি জানিয়েছে ক্রিকেট বিশ্লেষক ও সাবেক ক্রিকেটাররা। তবে ফাইনাল নিয়ে এবার বেরিয়ে এলো আরেক সমালোচনার জন্ম দেয়া খবর।

ফাইনালের আম্পায়ারিং ছিলো ভুলে ভরা। এবার সেই আম্পায়ারিংকেই দোষ দিলেন সাবেক খ্যাতিমান আম্পায়ার সাইমন টফেল। তার দাবি ফাইনাল ম্যাচে ভুল আম্পায়ারিংয়ের জন্য ১ রান বেশী পেয়েছে ইংল্যান্ড। তিনি মনে করেন, আম্পায়াররা সঠিক সিদ্ধান্ত নিলে নির্ধারিত ওভারেই নিউজিল্যান্ড ম্যাচ জিততে পারত এবং এতে সুপার ওভারে ম্যাচ গড়ানোর কোনো কারণ ছিলো না।

ম্যাচের শেষ ওভারে ছিলো টানটান উত্তেজনা এবং জন্ম দেয় নাটকীয়তার। ঐ ওভারে ইংল্যান্ডের দরকার ১৫ রান। ওভারের চতুর্থ বলে তড়িঘড়ি করে ২ রান নেয় বেন স্টোকস। মার্টিন গাপটিলের ছুঁড়ে মারা বল ওভারথ্রো হয়ে যায় এবং বেন স্টোকসের হাতে লেগে বল ছাড়িয়ে যায় সিমানা। ফলাফল ৪ রান। ওভারথ্রোর ৪ রানের সাথে বোর্ডে যুক্ত হয় স্টোকসের দৌড়ে নেওয়া ২ রানও। তবে টফেলের দাবি, নন স্ট্রাইকিং প্রান্তে নিরাপদে পৌঁছাবার আগেই স্টোকসের ব্যাটের ছোঁয়ায় এখানে একটি রান যোগ হওয়ার কথা ছিলো। সাথে ওভারথ্রো থেকে আসা ৪ রান হিসেব করলে মোট দাঁড়ায় ৫ রান। সেক্ষেত্রে ইংল্যান্ডের দলীয় সংগ্রহ দাঁড়াত ২৪০ নিউজিল্যান্ড থেকে ১ রান কম।

সাইমন টফেল ক্রিকেটের আইন প্রণেতা এমসিসির উপ কমিটির সদস্য। এমসিসির প্রণীত নিয়মগুলো তার তার বেশ ভালো ভাবেই জানা আছে। ফাইনাল ম্যাচে আম্পায়াররা ভুল করেছে বলে ১ রান বেশী পেয়েছে ইংল্যান্ড এটি দাবি করে সাইমন টফেল বলেন, ইংল্যান্ডের স্কোরে ৫ রান যোগ হওয়ার কথা ছিলো, ৬ রান নয়। এটা পরিষ্কার ভুল ছিল। আম্পায়ারদের সিদ্ধান্তে ত্রুটি ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: