এশিয়ার মধ্যে ভারতের পরেই পাকিস্তান নয় দাপট দেখাচ্ছে বাংলাদেশ!

ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিতার পর থেকে বাংলাদেশের প্রশংসায় ভাসাচ্ছেন অনেক ক্রিকেট বিশ্লেষকরা৷বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে দারুণ সম্ভাবনা দেখছেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার.

ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিতার পর থেকে বাংলাদেশের প্রশংসায় ভাসাচ্ছেন অনেক ক্রিকেট বিশ্লেষকরা৷বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে দারুণ সম্ভাবনা দেখছেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও বর্তমানের ধারাভাষ্যকার আকাশ চোপড়া।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে তিনি বিশ্বকাপের দলগুলো নিয়ে বিশ্লেষণ করে থাকেন। বাংলাদেশকে নিয়ে বিশ্লেষণ করতে গিয়ে আকাশ চোপড়া পাকিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে রেখেছেন বিশ্বকাপে। শুধু তাই নয় তিনি বলেছেন ভারতের পর এশিয়ার কোনো দল যদি ক্রিকেটে দাপট দেখায় তাহলে তা হচ্ছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ দলকে নিয়ে আকাশ চোপড়ার বক্তব্য, এশিয়ার মধ্যে ভারতের পর যদি কোনো দল ক্রিকেটে দাপট দেখাচ্ছে তাহলে সে দলটি পাকিস্তান নয় বরং বাংলাদেশ।

আকাশ আরো বলেন, বাংলাদেশ দলকে নিয়ে আপনি কি ভাবতে পারেন? ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে। আবার যদি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির কথা বলি নকআউট পর্বে খেলেছিলো আবার এশিয়া কাপের ফাইনালেও খেলেছিলো বাংলাদেশ দল৷ আপনি যদি বাংলাদেশকে হাল্কা টিম হিসেবে নেন তাহলে সেটা আপনার অনেক বড় ভুল হবে। বাংলাদেশকে হাল্কাভাবে নেয়া ঠিক হবে না৷ বাংলাদেশ অনেক ভালো খেলে এবং এই বছরও খেলবে৷

বাংলাদেশের ব্যাটিং নিয়ে বলতে গিয়ে আকাশ বলেন, তামিম ইকবাল অনেক ভালো খেলেন। দূর্দান্তভাবে তিনি ব্যাটিং করেন। বর্তমানে তিনি দূর্দান্ত ফর্মে আছেন। তামিমের সাথে আসতে পারেন লিটন দাস এবং সৌম্য সরকার৷ সৌম্য সরকার উপরে নিচে ব্যাটিং করতে পারেন৷ আবার বোলিংও করে থাকেন৷ কিছুটা ভ্যারাইটি দিয়ে থাকে সৌম্য সরকার। সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমতো আছেনই। একটা বিষয় বাংলাদেশকে নজরে রাখতে হবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ব্যাটিং। তিনি অনেক শক্তিশালী ব্যাটিং করে থাকেন। গত বিশ্বকাপে আমরা তা দেখেছি তিনি কতগুলো শতক করেছেন। তো বাংলাদেশের উচিত মাহমুদুল্লাহ কে সুযোগ দেয়া। কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত বাংলাদেশ তাকে সুযোগ কম দিয়ে থাকে। তাকে ব্যাটিংয়ে উপরে পাঠানোর দরকার৷ মুশফিক সাকিব রান করবে সাথে মোসাদ্দেক ও সৌম্য সরকার তো আছেই। ২৮০ বা ৩০০ পর্যন্ত রান যেতে পারে।

বাংলাদেশের বোলিং এর ব্যাপারে আকাশ চোপড়া বলেন, প্রথমেই বলেন মাশরাফি বিন মুর্তজার কথা। মাশরাফি একজন দূর্দান্ত বোলার যদিও তার বলে গতি নেই দুই পায়ে অপারেশন হয়েছে। কিন্তু আপনার মধ্যে যদি কিছু করার ইচ্ছা থাকে একটা জোশ থাকে তাহলে সেই জোশ কাজ করে মাশরাফির ভিতরে। সে একজন টপ ক্লাস খেলোয়াড় এবং তার চিন্তাধারা তীব্র গতির৷ মোস্তাফিজুর রহমান ফাস্ট বোলার কিছুটা কাটার বোলিং করে থাকেন। ডেথ ওভারে দূর্দান্ত বোলিং করে থাকেন। রুবেল হোসেন হাল্কা রিভার সুইং করলেও ব্যাটসমানদের ভোগাবে। বোলারদের মধ্যে তিনিই গতি দিয়ে বল করে থাকেন। যখন ভালো করে অনেক ভালো করে রুবেল হোসেন। আরেকজন খেলোয়াড় রয়েছে বাংলাদেশ দলে৷ তার নাম মেহেদী হাসান মিরাজ। অনেক ভালো স্পিন করে থাকেন এবং এ্যাকশনের সাথে বোলিং করে থাকেন। ব্যাটিংও করে থাকেন ঠিকভাবে।

আকাশ চোপড়া বাংলাদেশের এক্স ফ্যাক্টর খেলোয়াড় হিসেবে রেখেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ এবং সাকিব আল হাসান। তিনি বলেন, মাহমুদুল্লাহ আমার অনেক পছন্দের খেলোয়াড়। তিনি যদি ভালো খেলেন তাহলে বাংলাদেশ ভালো করে। ফিনিশিং টাচ দিয়ে থাকেন মাহমুদুল্লাহ৷ তার সাথে আছেন সাকিব আল হাসান। সাকিব যদি ফর্মে থাকেন তাহলে বাংলাদেশের গতি আরো বেড়ে যাবে৷

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ সেরা ৪ এ থাকবেন এমনটায় বলেন আকাশ। তিনি বলেন, বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ৪ নাম্বারে যেতে পারে। সেই যোগ্যতা রাখে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিন আফ্রিকাও আসবে ৪ এর লড়াইয়ে কিন্তু বাংলাদেশ সবার থেকে এগিয়ে থাকবে বলে আমি মনে করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: